DISABLE DEVELOPMENT & EDUCATIONAL FOUNDATION DDEF


 এনজিও’র সূত্রপাত :  (২০০ শব্দের মধ্যে সংক্ষিপ্ত ইতিহাস) গ্রামের অবহেলিত দরিদ্র প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠির শিক্ষা,প্রশিক্ষণ ও পূর্ণবাসনের স্বপ্ন নিয়ে ডিজএবল ডেভেলপমেন্ট এন্ড এডুকেশনাল ফাউ-েশন(ডিডিইএফ) প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনটি বেকার যুবক মহিলা ও শিশু উন্নয়নে কাজ করতে বদ্ধ পরিকর।
 প্রতিষ্ঠা তারিখ: ০১-০১-২০০১
 প্রতিষ্ঠা স্থান : রায়হানপুর,পাথরঘাটা,বরগুনা
 প্রতিষ্ঠাতা : (নাম, ঠিকানা, যোগাযোগ)” মোঃ রেজাউল কবির, গ্রাম+পোঃ রায়হানপুর,উপজেলাঃ পাথরঘাটা,জেলাঃ বরগুনা  নির্বাহী পরিচালক : (না,ম, যোগাযোগ) মোঃ রেজাউল কবির, গ্রাম+পোঃ রায়হানপুর,উপজেলাঃ পাথরঘাটা,জেলাঃ বরগুনা-০১৭১৬৭৩৩৬৭৬,০১৭১২১৩৬৫৫৮
 মিশন বা লক্ষ্য : প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠির উন্নয়ন
 উদ্দেশ্য : গ্রামের দরিদ্র প্রতিবন্ধী,দুঃস্থ মহিলা,শিশু ও বেকার যুবকদের সার্বিক উন্নয়ন
 বিশ্বাস : সংগঠনটি সকলের সহযোগিতায় লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন করতে পারবে
 রেজিষ্ট্রেশন নম্বর ও তারিখঃ  তারিখ ঃ, -২৬০৮ঃ তারিখ, -২২০ তারিখ ঃ

ক্রঃ নং    রেজিষ্ট্রেশন কর্তৃপক্ষ    রেজিষ্ট্রেশন নং    তারিখ
১    সমাজ সেবা-৪৩৩    ৪৩৩    ২৯-০৫-২০০৭
২    এনজিও বিষয়ক ব্যুরো    ২৬০৮    ৪-১০-২০১০
৩    যুব উন্নয়ন    ২২০    ১০-০১-২০১০


 সদস্যভূক্ত নেটওয়ার্কের নাম : জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম,বাংলাদেশ মানবাধিকার সমন্বয় পরিষদ,ভলান্টারী সোস্যাল হেলথ সার্ভিসেস,পাবলিক হেলথ মুভমেন্ট.কোয়ালিশন অব লোকাল এনজিওস ইন বাংলাদেশ,ন্যাডপো।
 নেতৃত্বদানকারী নেটওয়ার্কের নাম :,
 পার্টনারের নাম (যদি থাকে) : জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম,জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউ-েশন,বসুন্ধরা ফাউ-েশন,বাংলাদেশ ন্যাশনাল সমাজকল্যাণ পরিষদ,স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়,স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও আইএনসি-ইউএস এ।

 এপর্যন্ত যে সকল দাতা সংস্থার কাছ থেকে অনুদান গ্রহন করেছে ঃ (দফা অনুযায়ী)
ক) আন্তর্জাতিক পর্যাযের .......আই এন  সি ইউ এস এ...............................................................................
খ) দেশীয় পর্যায়ের  জাতীয় প্রতিবন্ধী ফোরাম,জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউ-েশন,বসুন্ধরা ফাউ-েশন,বাংলাদেশ ন্যাশনাল সমাজকল্যাণ পরিষদ,স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়,স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়.............................
গ) এপর্যন্ত কোন কোন কাজের অধীনে অর্থ প্রাপ্তি.স্বাস্থ্য সেবা(ঠোঁট কাটারোগীদের বিনামূল্যে সাজার্রী অপারেশন, প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষা,মহিলা উন্নয়ন,অবকাঠামো উন্নয়ন।
ঘ) উল্লেখযোগ্য সংখ্যাগত অর্জনসমূহ :  ২০০০ জন ঠোট কাটা রোগ বিনামূল্যে সাজারী অপারেশনের সুযোগ পেয়েছে। ৫০ জন  শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিনামূল্যে হুইল পেয়েছে। ২০  দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তি সাদা ছড়ি  পেয়েছে। ৮ জন শারীরিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বিনামূল্যে ক্রাচ পেয়েছে। ৫০ জন প্রতিবন্ধী শিশু শিক্ষার সুযোগ পেয়েছে। ৮০ মহিলা এককালীন অনুদান সুবিধা পেয়েছে।