Friendship

ফ্রেন্ডশিপ

প্রান্তিক এবং সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর মর্যাদা পুনরুদ্ধারের লক্ষে একটি চাহিদা-ভিত্তিক ও সমন্বিত উন্নয়ন ধারার মাধ্যমে ফ্রেন্ডশীপ যমুনা নদীর চর এলাকা এবং দক্ষিণাঞ্চলের ঘূর্ণিঝড় আক্রান্ত এলাকার ঝুঁকিপ্রবণ মানুষের স্বাস্থ্য, শিক্ষাসহ জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে কাজ করে আসছে। ভৌগোলিক সীমাবদ্ধতার কারণে এসব এলাকার মানুষ প্রায় সব ধরণের সরকারী এবং অন্যান্য উন্নয়নমূলক সংস্থার সহায়তা থেকে বঞ্চিত|

রুনা খান এর নেতৃত্বে ২০০২ সালে উত্তরবঙ্গে  ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা নদীর চর এলাকায় দেশের প্রথম ভাসমান হাসপাতাল লাইফবয় ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতালের মাধ্যমে ফ্রেন্ডশীপের কার্যক্রম শুরু করে | এরপর ২০০৮ সালে এমিরেটস ফ্রেন্ডশিপ হাসপাতাল নামে দ্বিতীয় আরেকটি ভাসমান হাসপাতাল সংযুক্ত হয়| উপকূলবর্তী মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দিতে ২০০২ সালে ফ্রেন্ডশিপ তার ভাসমান হাসপাতাল বহরে যুক্ত করে তৃতীয় জাহাজ ‘রংধনু’। আন্তর্জাতিক শান্তি ও পরিবেশবাদী সংগঠন ‘গ্রিনপিস’ থেকে পাওয়া জাহাজটিকে উপকূলবর্তী এলাকার ঝুঁকিপ্রবণ ও প্রান্তিক মানুষের জন্য জরুরি স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের জন্য ভাসমান হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়।

ফ্রেন্ডশীপের প্রধান লক্ষ্য হল মানুষের মৌলিক দক্ষতা বিকাশ করা এবং একটি উন্নয়ন পরিকাঠামো নির্মাণে সহায়তা করা যাতে চরের এবং উপকূলবর্তী এলাকার মানুষদের দরিদ্রতার ফাঁদ থেকে বেরিয়ে আসতে এবং স্থিতিশীল সুযোগ ও সম্ভাবনার দার খুলে দিতে সাহায্য করবে। এই লক্ষে বর্তমানে ফ্রেন্ডশীপ একটি সমন্বিত উন্নয়ন ধারার মাধ্যমে কাজ করছে যেখানে স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি শিক্ষা, সুশাসন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও অবকাঠামো উন্নয়ন, টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং সাংস্কৃতিক সংরক্ষণ, এই ছয়টি খাতে ফ্রেন্ডশিপের কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

 

বিস্তারিত জানতে ভিসিট করুন: www.friendship-bd.org

যোগাযোর করুন: info@friendship-bd.org